সারারাত মৃত বাবার পাশে থেকে সকালে পরীক্ষা কেন্দ্রে মিরাজ

ভালো করে পরীক্ষা দেবে, ভয় পাবে না—বাবা মোতাহের হোসেন খানের (৫৩) মুখ থেকে সর্বশেষ এই কথাটাই শুনেছে এসএসসি পরীক্ষার্থী মাহিদুল হোসাইন খান মিরাজ। এর কয়েক ঘণ্টা পর বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বাবা মারা যান। সারারাত মৃত বাবার পাশে বসে থেকে বৃহস্পতিবার সকালে পরীক্ষায় অংশ নেয় মিরাজ। দুপুরে বাড়ি ফিরে মরদেহের পাশে দাঁড়িয়ে বলে, ‌‘পরীক্ষা ভালো হয়েছে বাবা’।

মোতাহের হোসেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার দেবগ্রামের বাসিন্দা। তিনি আখাউড়া পৌর এলাকার রাধানগরে অবস্থিত গ্রিন ভ্যালি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা। তার ছেলে মিরাজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।

স্বজনরা জানান, বুধবার দুপুরে অসুস্থ বোধ করেন মোতাহের হোসেন। সন্ধ্যায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বৃহস্পতিবার বিকালে দেবগ্রাম পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

মোতাহের হোসেনের বন্ধু উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল মমিন বাবুল বলেন, ‘খুব ভালো মানুষ ছিলেন মোতাহের। তার প্রতিষ্ঠিত স্কুলটি আখাউড়ার অন্যতম। এসএসসি পরীক্ষা চলা অবস্থায় বাবা মারা যাওয়ায় তার ছেলে মিজান মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। সারারাত মৃত বাবার পাশে বসেছিল। সকালে এক স্বজন তাকে আখাউড়া থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পরীক্ষার হলে নিয়ে যায়। সে ফিরে এলে বিকালে মোতাহেরের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।’

রুবেল মিয়া নামে মিরাজের এক সহপাঠী সাংবাদিকদের জানায়, আজ সাধারণ গণিত পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষার হলে বসেও মিরাজ কান্না করছিলো। কক্ষ পরিদর্শক ও সহপাঠীরা তাকে সান্ত্বনা দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.