জেনে নিন ,চুলের যত্নে কফির ব্যবহার

অনেকেরই দিন শুরু হয় এক কাপ কফি দিয়ে। এটি আমাদের দৈনন্দিন জীবনেরই একটা অংশ। তবে, কফি শুধুমাত্র শারীরিকভাবেই সতেজতা বাড়ায় না, চুল ও মাথার ত্বকের জন্যও এটি অত্যন্ত উপকারী। মজবুত ও ঝলমলে চুলের জন্য কফির প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। কফির ব্যবহারে চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, চুল দ্রুত বাড়ে। এছাড়া স্ক্যাল্পে জমে থাকা ময়লা ও খুশকি দূর করে চুল পড়া বন্ধ করতে বেশ কার্যকর কফি।

কফিতে থাকা ক্যাফেইন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট চুলের যত্নে অনন্য। নিয়মিত কফির হেয়ার প্যাক ব্যবহারে বাড়ে চুলের বৃদ্ধি। এছাড়া চুল পড়া কমিয়ে চুল ঝলমলে করতেও জুড়ি নেই কফির। বিভিন্ন কারণে চুল ক্ষতিগ্রস্ত হলে কফি কাজে লাগাতে পারেন। চলুন জেনে নেয়া যাক, কফি দিয়ে কীভাবে চুলের যত্ন নেবেন-

কফি দিয়ে চুল ধোয়া: কফি দিয়ে চুল ধুলে তা চুলের দ্রুত বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। প্রথমে ২ টেবিল চামচ গ্রাউন্ড কফি ও ১ কাপ পানি নিন। এবার ১ কাপ কফি তৈরি করে তা ঠান্ডা হতে দিন। মাথায় ভালো করে শ্যাম্পু করে মাথা মুছে ফেলুন এবং চুল থেকে অতিরিক্ত পানি ঝরিয়ে ফেলুন। এরপর মাথার ত্বকে এবং চুলে ঠান্ডা কফি ঢালুন। পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করুন। ৩০ মিনিট চুল ঢেকে রাখুন। তারপর হালকা গরম পানির সাহায্যে ভালো করে চুল ধুয়ে ফেলুন এবং শুকিয়ে নিন। দ্রুত ফলাফলের জন্য সপ্তাহে ২-৩ বার এটি করতে পারেন।

কফি, নারিকেল তেল ও দই: চুলে পুষ্টি জোগায় নারিকেল তেল। এটি চুলকে শক্তিশালী করতে চুলের ফলিকলগুলোকে পুষ্ট করে। আর দইয়ে আছে ল্যাকটিক অ্যাসিড, যা মাথার ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। প্রথমে ২ টেবিল চামচ কফি পাউডার, ২ টেবিল চামচ নারিকেল তেল ও ৩ টেবিল চামচ দই নিন। এবার একটি পাত্রে কফি পাউডার, নারিকেল তেল ও দই নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এরপর হাতে পরিমাণ-মতো এই মিশ্রণটি নিয়ে তা মাথার ত্বকে এবং চুলে ভালোভাবে লাগান। এরপর এক ঘণ্টা চুল ঢেকে রাখুন। এক ঘণ্টা পর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে ২-৩ বার করতে পারেন।

কফি স্ক্রাব: মাথার ত্বকেও প্রয়োজন পড়ে স্ক্রাবের। এটি স্ক্যাল্পের স্বাস্থ্য এবং আপনার চুল ভালো রাখতে সাহায্য করে। প্রথমে ৮ টেবিল চামচ কফি ও ১ কাপ পানি নিন। এককাপ কফি তৈরি করে তা ঠান্ডা হতে দিন। এরপর পরিমাণ-মতো হাতে নিয়ে পাঁচ মিনিট ধরে মাথার ত্বকে ভালোভাবে স্ক্রাব করুন। মাথা ধুয়ে চুল শুকিয়ে নিন। এটি সপ্তাহে দু’বার করুন।

আরও পড়ুন: চোখের যত্নে যা খাবেন

কফির প্যাক: মাথার ত্বকের শুষ্কতা বেড়ে গেলে চুল রুক্ষ হয়ে যায়। তখন চুল পড়া বেড়ে যায়। এজন্য ব্যবহার করতে পারেন কফির তৈরি প্যাক। একটি কাপে ব্ল্যাক কফি তৈরি করুন। এটি ঠান্ডা হতে দিন। এরপর আরেক বাটিতে ২ টেবিল চামচ কফি, ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল, ১ চা চামচ আমন্ড অয়েল নিয়ে ভালোভাবে মেশান। এরপর এটি মাথার ত্বকে লাগিয়ে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট রেখে দিন। এখন চুলে শ্যাম্পু করে নিন। এবার ঠান্ডা কফি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। আরও পাঁচ মিনিট রেখে ভালো করে চুল ধুয়ে ফেলুন। তারপর শুকিয়ে নিন। সপ্তাহে ১-২ বার এটি করতে পারেন।

কফি কন্ডিশনার: নিয়মিত ব্যবহারের কন্ডিশনারের সঙ্গে কফি পাউডার মিশিয়ে চুলের গোড়ায় ঘষে লাগান। এটি মাথার ত্বকের মরা চামড়া দূর করবে। ১০ মিনিট পর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন চুল।

কালো ও ঝলমলে চুল: ২ টেবিল চামচ কফি পাউডারের সঙ্গে ১ টেবিল চামচ মধু ও ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মেশান। মিশ্রণটি চুলের আগা থেকে গোঁড়া পর্যন্ত লাগিয়ে রাখুন ১ ঘণ্টা। চুল হবে উজ্জ্বল, কালো ও ঝলমলে।

মধু ও কফি: প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার হিসেবে মধু অতুলনীয়। এছাড়া চুলের গোড়ায় থাকা জীবাণু দূর করতেও সক্ষম এই উপকারী উপাদানটি। ১ টেবিল চামচ কফি গুঁড়ার সঙ্গে ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিন। চুলের আগা থেকে গোঁড়া পর্যন্ত মিশ্রণটি লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন চুল।

কফি ও ক্যাস্টর অয়েল: চুল ভিজিয়ে নিন প্রথমে। এরপর ক্যাস্টর অয়েল ও কফির মিশ্রণ ভালো করে লাগান চুলে। উঁচু করে খোঁপা বেঁধে রাখুন ঘণ্টা-খানেক। মাইল্ড শ্যাম্পুর সাহায্যে ধুয়ে ফেলুন চুল।

কফি ও ভিটামিন ই: কফির সঙ্গে কয়েকটি ভিটামিন ই ক্যাপসুলের তেল মিশিয়ে নিন। চুলের গোড়ায় ঘষে ঘষে লাগান। ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন শ্যাম্পু দিয়ে। চুল হবে সিল্কি ও মজবুত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *